যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচন: মনোনয়ন লড়াই

1নিউ হ্যাম্পশায়ারে প্রাইমারি নির্বাচনে ভরাডুবির পর রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন প্রক্রিয়া থেকে নিজের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন নিউজার্সির গভর্নর ক্রিস ক্রিস্টি। এক সপ্তাহ আগে আইওয়া ককাসে নামমাত্র ভোট পাওয়ার পর তিনি নিউ হ্যাম্পশায়ারে ভালো ফল আশা করেছিলেন। এর আগের সপ্তাহে অনুষ্ঠিত বিতর্কে তাঁর সাঁড়াশি আক্রমণে ধরাশায়ী হন ফ্লোরিডার সিনেটর মার্কো রুবিও।

কিন্তু তবুও তাঁর শেষ রক্ষা হলো না, মাত্র ৭ দশমিক ৪ শতাংশ ভোট পেয়ে তড়িঘড়ি নিউজার্সিতে ফিরে এসেছেন ক্রিস্টি।

একই অবস্থা কার্লি ফিওরিনার। হিউলিট-প্যাকার্ডের এই প্রাক্তন চেয়ারওম্যান রিপাবলিকান দলের একমাত্র নারী প্রার্থী, অনেকে তাঁকে এই দলের হিলারি ক্লিনটন হিসেবে অভিহিত করেন। গত তিনটি বিতর্কে তিনি চমৎকার দক্ষতা দেখিয়েছিলেন। কিন্তু নিউ হ্যাম্পশায়ারে তাঁর বাক্সে ভোট পড়েছে মাত্র ৪ শতাংশ। এর আগে আইওয়া ককাসে তিনি ২ শতাংশের কম ভোট পেয়েছিলেন। নিরুপায় হয়ে প্রতিযোগিতা থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ফিওরিনা।

আরেক রিপাবলিকান প্রার্থী শল্যচিকিৎসক বেন কারসন। তিনি নিউ হ্যাম্পশায়ারে ২ দশমিক ৩ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। তাঁর অবস্থান অষ্টম। কিন্তু তিনি জানিয়েছেন, প্রতিযোগিতা থেকে তাঁর সরার কোনো প্রশ্ন ওঠে না। নিউ হ্যাম্পশায়ারে নির্বাচনী ফলাফল চূড়ান্ত হওয়ার আগেই তিনি সাউথ ক্যারোলাইনার উদ্দেশে রওনা হয়ে যান। এমনকি নিজের নির্বাচন-উত্তর উৎসবেও তিনি উপস্থিত হননি। নিম্নকণ্ঠ ও ধার্মিক হিসেবে পরিচিত কারসন আশা করছেন, সাউথ ক্যারোলাইনার মিশ্র বর্ণের ভোটারদের কাছে তাঁর কদর হবে।

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0Print this page