তিন বছর সময় চেয়ে বিজিএমইএ’র রিভিউ

নিজস্ব প্রতিনিধি : পোশাক প্রস্তুত ও রফতানিকারীদের সবচেয়ে বড় সংগঠন বিজিএমইএ’র ১৮ তলা অবৈধ ভবন ভেঙে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে ফেলা সংক্রান্ত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের দেয়া রায় পুনঃবির্বেচনার (রিভিউ) চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। আপিল বিভাগের রায় স্থগিত করে বহুতল ভবনটি ভেঙে ফেলার জন্য তিন বছরের সময় চাওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য চলতি বছরের ৮ নভেম্বর বিজিএমইএ ভবন ভাঙার বিষয়ে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়। তৈরি পোশাক উৎপাদক ও রফতানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান এই তথ্য জানিয়েছেন।

bangladesh-garment-manufacturers-exporters-association-bgmea-garmentsbuyers-info-1

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই রিভিউ দাখিল করা হয়েছে। রিভিউ এর বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আইন অনুযায়ী সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য আমরা আইনজীবীদের বলেছি।ঊনারা আইন অনুযায়ী এ বিষয়ে সব সিদ্ধান্ত নেবেন। তবে তিনি আরও জানান, আগামী ১৭ ডিসেম্বর বোর্ড মিটিংয়ে সকলে মিলে আলোচনা করার পর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবো এবং আনুষ্ঠানিকভাবে জানাবো।

আদালত সূত্রে জানা গেছ, শুধু ভবন ভাঙা ঠেকাতে নয় রিভিউ পিটিশনে ভবন ভাঙার জন্য তিন বছর সময় প্রার্থনা করা হয়েছে। রিভিউতে বলা হচ্ছে তৈরি পোশাক শিল্প দেশের অর্থনীতির অগ্রগতিতে বড় ভূমিকা রাখছে।
রফতানি আয়ের ৮০ ভাগই এ খাত থেকে আসছে। এ অবস্থায় ভবনটি ভাঙ্গার নির্দেশ সংক্রান্ত সর্বোচ্চ আদালতের রায় পুনঃবির্বেচনা চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। রিভিউতে বলা হয়েছে, ভবনটি সরানোর জন্য কমপক্ষে তিন বছর সময় যাতে দেয়া হয়, সেই আবেদনও জানানো হয়েছে। তারা আশা করছেন, সর্বোচ্চ আদালত সার্বিক বিষয় বিবেচনায় নিয়ে আমাদের আবেদন মঞ্জুর করবেন।

হাইকোর্ট ২০১১ সালের ৩ এপ্রিল ভূমির মালিকানা স্বত্ত্ব না থাকা এবং ইমারত নির্মাণ বিধিমালা ও জলাধার আইন ভঙ্গ করায় বিজিএমইএ ভবন নির্মাণ অবৈধ ঘোষণা করা হয়।

৮ নভেম্বর প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির স্বাক্ষরের পর ওই দিন বিকেলে সুপ্রিম কোর্টের ওয়েব সাইটে ৩৫ পৃষ্ঠার এই রায় প্রকাশ করা হয়। রায়ে ৯০ দিনের মধ্যে এই ভবন ভাঙতে নির্দেশ দেয়া হয়।

Share on Facebook144Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0Print this page