সব শর্ত পূরণের পরও জিএসপি পুনর্বহাল করছে না যুক্তরাষ্ট্র

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র রানার প্লাজা ধসের পর ওবামা প্রশাসন বাংলাদেশের তৈরি পোশাক কারখানার কাজের পরিবেশ ও শ্রমিকের স্বার্থ সুরক্ষা নিয়ে উদ্বেগের পরিপ্রেক্ষিতে দেশটির বাজারে বাংলাদেশের পণ্যের অবাধ বাজার সুবিধা (জিএসপি) স্থগিত করে। এমনকি পোশাক খাতে কাজের পরিবেশের উন্নতির জন্য ১৬টি শর্ত দেওয়া হয়। আর এসব শর্ত পূরণ না হওয়া পর্যন্ত স্থগিতাদেশ বহাল থাকবে বলা হয়। কিন্তু এসব শর্ত পূরণ করার পরও আরও উন্নতির কথা বলে জিএসপি পুনর্বহাল করছে না দেশটি।

15392790_10209988318539029_7523535981642099005_o

আজ সোমবার রাজধানীর আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টার বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) শুরু হওয়া তিন দিনের অগ্নিনির্বাপক সামগ্রীর প্রদর্শনী ইন্টারন্যাশনাল ফায়ার সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি এক্সপো-২০১৬ উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

15369301_10209988320419076_8953101474945294119_o

বাংলাদেশকে যারা একসময় উন্নয়নের পরামর্শ দিত এমনসব দেশই এখন বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দিচ্ছে ‘বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল’। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে ডিজিটাল মধ্য আয়ের দেশ। আর ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে রূপান্তর হবে। আর এই লক্ষ্যেই বাংলাদেশ সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

15419667_10209988322859137_444779887256559947_o

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের পোশাক খাতের ২৫৩টি কারখানা গ্রিন কারখানা হতে চলছে। এছাড়া সারাবিশ্বের ২৫টি কারখানার মধ্যে সম্প্রতি বাংলাদেশের সাতটি কারখানাকে বিশ্বসেরা পরিবেশবান্ধব কারখানা বলে স্বীকৃতি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠান ইউএসজিবিসি (ইউএস গ্রিন বিল্ডিং কাউন্সিল)। ফলে একসময় যারা আমাদের উন্নয়নের পরামর্শ দিত এখন তারাই বলছে, বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল।

15385330_10209988315178945_696783897137712609_o
মেলায় অগ্নি নির্বাপন প্রক্রিয়ার মহড়া প্রদর্শন করে বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, রানা প্লাজা দুর্ঘটনার পর সারাবিশ্বে কর্মক্ষেত্রে বাংলাদেশের শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিয়ে হৈচৈ শুরু হয়। বিশেষ করে বাণিজ্যমন্ত্রী হওয়ার ফলে আমাকে অনেক প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছিল সেই সময় এসব বিশ্ব নেতৃত্বের কাছ থেকে। তবে বর্তমানে কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনা অনেক কমে এসেছে। একই সঙ্গে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

dsc_0504

তিনি আরও বলেন, পোশাক খাতে এখনও কিছু সমস্যা আছে আর এসব তেমন উল্লেখযোগ্য কোনো সমস্যা না হলেও বহিরাগত শ্রমিকরা কারখানায় এখন কিছু সমস্য তৈরি করছে।

তিনদিন ব্যাপি  ইন্টারন্যাশনাল ফায়ার সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি এক্সপো-২০১৬ তে অংশ নিয়েছে দেশ বিদেশী বিভিন্ন কোম্পানী। মেলায় বিভিন্ন ফায়ার সেফটি ও সিকিউরিটি সিস্টেম সরবরাহকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি ও প্রযুক্তির প্রদর্শন করছে। মেলায় প্রবেশ ফি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Share on Facebook344Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0Print this page