ঢাকা শনিবার, অক্টোবর ১৯, ২০১৯



তৈরি পোশাকের উপযুক্ত দর নির্ধারণের দাবি বাণিজ্যমন্ত্রীর

ডেস্ক রিপোর্ট: বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বিপুল অর্থ বিনিয়োগে নির্মিত দেশের তৈরি পোশাক কারখানাগুলো এখন নিরাপদ ও কর্মবান্ধব। । তবু তৈরি পোশাকের দাম বাড়ায়নি ক্রেতা জোট। এই অবস্থা থেকে বিনিয়োগকারীদের রক্ষায় ক্রেতাজোটগুলোর সাথে আলোচনা সাপেক্ষে তৈরি পোশাকের উপযুক্ত দর নির্ধারণ করতে হবে।

সোমবার (২৫ জুন) বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে সাসটেইনিবিলিটি কম্প্যাক্টের চতুর্থ পর্যালোচনা সভার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ দাবি জানান।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক কারখানাগুলোর পরিবেশ এখন বিশ্বের যেকোনো দেশের তুলনায় ভালো। এগুলো উন্নত করে গড়ে তোলা হয়েছে। ভবন ও অগ্নি নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। উন্নত ও কর্মবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করা হয়েছে। এতে করে শিল্প মালিকরা আরও বিপুল অর্থ বিনিয়োগ করেছেন। কিন্তু দেশের বাইরে তৈরি পোশাকের মূল্য বৃদ্ধি করা হচ্ছে না। এতে বিপুল বিনিয়োগ ঝুঁকিতে পড়েছে।

ফাইল ছবি

তিনি বলেন, বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের মূল্য বৃদ্ধি করা একান্ত প্রয়োজন। সরকার বাংলাদেশের শ্রম আইন সংশোধন করেছে। শ্রমিকরা এখন যে কোনো সময়ের তুলনার অধিক শ্রম অধিকার ভোগ করছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়িক অংশীদার। বিশেষ করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ‘এভরিথিং বাট আর্মস (ইবিএ)’- এর আওতায় বাংলাদেশকে জিএসপি সুবিধা প্রদান করে যাচ্ছে। এতে আমরা অর্থনৈতিকভাবে বেশ উপকৃত হচ্ছি। এজন্য বাংলাদেশ তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত, বাংলাদেশে নিযুক্ত অস্ট্রেলিয়ার রাষ্ট্রদূত, বাংলাদেশে নিযুক্ত কানাডার রাষ্ট্রদূত, আইএলও প্রতিনিধি বক্তব্য রখেন।

এছাড়া বাংলাদেশে প্রতিনিধিদলের সদস্য শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু, বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসু, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব আফরোজা খান, এফবিসিসিআই-এর সভাপতি মোহাম্মদ শফিউল ইসলাম, বিজিএমইএ-এর প্রেসিডেন্ট সিদ্দিকুর রহমান, বাংলাদেশ এক্সপোর্ট প্রসেসিং জোনের নির্বাহী পরিচালক মেজর জেনারেল হাবিবুর রহমান খান, বিকেএমইএ-এর প্রতিনিধি, বাংলাদেশ এমপ্লয়ার্স ফেডারেশনের প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্ট সিনিয়র কর্মকর্তারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।


আর্কাইভ